বাড়িঅন্যান্যওসমানীনগরে একই স্থানে বিএনপি’র দু’গ্রুপের ইফতার নিয়ে উত্তেজনা

ওসমানীনগরে একই স্থানে বিএনপি’র দু’গ্রুপের ইফতার নিয়ে উত্তেজনা

ওসমানীনগরে উপজেলা বিএনপি’র ব্যানারে একই স্থানে দু’গ্রুপের ইফতারের আয়োজন নিয়ে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উভয়কে সংযত থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি উপজেলা বিএনপি’র কাউন্সিলে দলের গঠনতন্ত্র পরিপন্থি প্রকাশ্য ভোট গ্রহণের অভিযোগ এনে একটি গ্রুপ নবগঠিত কমিটিকে পকেট কমিটি আখ্যা দিয়ে কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়ে আন্দোলন করছে। কমিটি বাতিলের জন্য একটি পক্ষ গত ১৩ মার্চ সিলেটের আদালতে মামলা দায়ের করেছে।

গত ১১ এপ্রিল উপজেলার তাজপুর কদমতলাস্থ একটি পার্টি সেন্টারে উপজেলা বিএনপির নবগঠিত কমিটির বিরোধী গ্রুপ উপজেলা বিএনপি’র ব্যানারে একটি ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেন। তখন বর্তমান কমিটির নেতৃবৃন্দ এ ইফতার মাহফিলে কর্মীদের উপস্থিত না হওয়ার জন্য আহবান জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিবৃতি প্রদান করেন। কিন্তু নবগঠিত কমিটির বিরোধীতার পরেও ইফতার মাহফিল সফল করেন বিরোধী গ্রুপের নেতা কর্মীরা।

এদিকে আগামী ২০ এপ্রিল বুধবার উপজেলার দয়ামীরস্থ মাহরা পার্টি সেন্টারে উপজেলা বিএনপি’র নব গঠিত কমিটির উদ্যোগে ইফতার মাহফিল করার ঘোষণা দেন। বিষয়টি জানতে পেরে একই স্থানে কমিটি বাতিলের দাবিতে আন্দোলনরত বিরোধী গ্রুপটিএ ইফতার মাহফিল করার ঘোষণা দেয়। তাদের পক্ষ থেকে ইফতার মাহফিলের আয়োজনের অনুমতি চেয়ে উপজেলা প্রশাসন বরাবরে একটি লিখিত আবেদন করেন সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি সৈয়দ এনায়েত হোসেন । এ ঘটনায় বিএনপি’র উভয় গ্রুপের নেতা কর্মীদের মাঝে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। উভয় পক্ষই তাদের কমর্সূচী পালনের সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি সৈয়দ এনায়েত হোসেন জানান, আমরা সিন্ডিকেট কমিটির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি। যারা টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রবাসীদের দিয়ে পকেট কমিটি করেছেন আমরা এর বিরোধীতা করছি। দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি, জননেতা তারেক রহমানের হাতকে শক্তিশালী এবং এম ইলিয়াছ আলীর সন্ধান দাবি আন্দোলন জোরালো করতে এই পকেট কমিটি কোন ভূমিকা পালন করতে পারবে না। কমিটি বাতিল করে ত্যাগী নেতা কর্মীদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

নবগঠিত কমিটিকে অবৈধ দাবি করে আদালতে মামলা দায়েরকারী বিএনপি নেতা সৈয়দ এনামুল হক পীর এনাম জানান, বিএনপির রাজপথের মূল ত্যাগী নেতা কর্মীদের সংঘটিত করতে আমরা ইতোমধ্যে তাজপুরে একটি বিশাল ইফতার মাহফিল সম্পন্ন করেছি। তৃণমূল নেতা কর্মীদের নিয়ে আগামী বুধবার দয়ামীরের মাহরা পার্টি সেন্টার, দয়ামীর বাজার সংলগ্ন তাহিদ খান সেন্টার এবং কুরুয়া বাজারস্থ একটি সেন্টারে পৃথক ইফতারের আয়োজন করেছি। আমরা বিএনপিকে তৃণমূলে সংঘটিত করতে নিয়মতান্ত্রিকভাবে কাজ করছি।

নবগঠিত উপজেলা বিএনপির সভাপতি এসটিএম ফখর উদ্দিন চেয়ারম্যান জানান, আগামী বুধবারে মাহরা সেন্টারে উপজেলা বিএনপি’র ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। অন্য কোন পক্ষ, গ্রুপ বা দল এখানে ইফতারের আয়োজন করেছে বলে আমার জানা নেই। মাহরা সেন্টারে ইফতারের সিদ্ধান্ত আমরা অনেক আগে নিয়েছি। সে লক্ষে প্রস্তুতি চলছে।
ওসমানীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম মাঈন উদ্দিন বলেন, বিএনপি’র একটি পক্ষ ইফতার করার জন্য আমাদের কাছে লিখিত অনুমতি চেয়েছে। আমরা উভয় পক্ষকে থাকার শান্ত থাকার পরামর্শ দিয়ে বিষয়টি নিয়ে ইএনও স্যারের সাথে পরামর্শ করেছি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নীলিমা রায়হানা বলেন, বিএনপির দু’টি পক্ষ একই স্থানে একই দিনে ইফতারের আয়োজন করেছে বলে শুনেছি। উভয়কে সংযত থাকতে বলেছি। প্রশাসন সময় মতো বিহিত ব্যবস্থা নেবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ ফেব্রুয়ারি একটি কাউন্সিলের মাধ্যমে উপজেলা বিএনপি’র কমিটি গঠন করা হয়। বিএনপি’র গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কাউন্সিল হচ্ছেনা এমন অভিযোগ এনে তাৎক্ষণিক বিএনপি নেতা সৈয়দ এনামুল হক পীর এনাম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গয়াছ মিয়া, সাবেক জেলা ছাত্রদল নেতা সৈয়দ এনায়েত হোসেন সহ অনেক নেতা কর্মী কাউন্সিলস্থল ত্যাগ করেন। এরপর কমিটি বাতিলের দাবিতে ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। আদালত নবগঠিত কমিটির সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ ৫ জনকে শোকজ করেছেন।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments