বাড়িএক্সক্লুসিভ নিউজছাতকে নির্মাণ হচ্ছে জ্ঞানের সাগর দূর্বিণ শাহ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ছাতক

ছাতকে নির্মাণ হচ্ছে জ্ঞানের সাগর দূর্বিণ শাহ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ছাতক

ছাতকে জ্ঞানের সাগর দূর্বিণ শাহ’র নামে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়। সেখানে তার সৃষ্টিকর্ম নিয়ে চর্চা হবে। সম্প্রতি বাংলাদেশের প্রখ্যাত শিল্পী, কবি, সাহিত্যিক ও বরেণ্য ব্যাক্তিবর্গের নামে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় সারাদেশের ২১ জন মনীষীর নামে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এই ২১ জন মনীষীর মধ্যে ছাতকের রয়েছেন জ্ঞানের সাগর দূর্বিণ শাহ। ওই সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের ফলে বাউলদের জীবনকর্ম, সৃষ্টিচর্চা ও গবেষণা হবে। ১৯২০ সালের ২রা নভেম্বর (১৩২৭ বঙ্গাব্দের ১৫ কার্তিক) তৎকালীন সিলেট জেলার সুনামগঞ্জ মহকুমার ছাতক থানার নোয়ারাই গ্রামের তারামনি টিলায় জন্মগ্রহণ করেন। এই তারামনি টিলা কালান্তরে দুর্বীন টিলা নামে পরিচিত হয়। তার রচিত অধিকাংশ গানে সুফি ও মরমিবাদ স্পষ্টভাবে ফুটে উঠলেও এসবের বাইরেও তিনি ভিন্ন মেজাজের অসংখ্য গান লিখেছেন।

তিনি ১৯৬৭ সালে প্রবাসী বাঙালিদের আমন্ত্রণে ইংল্যান্ড গিয়েছিলেন। তার অন্যতম সফর সঙ্গী ছিলেন বাউলসাধক শাহ আবদুল করিম। সেখানে দুর্বীন শাহের গানের কথা ও সুরে বিমোহিত হয়ে সঙ্গীত প্রেমীরা তাকে ‘জ্ঞানের সাগর’ উপাধিতে ভূষিত করেন। মাত্র সাত বছর বয়সে বাবাকে হারান এই বাউলসাধক। ১৯৪৬ সালে সুরফা বেগমের সঙ্গে বিয়ে হয় তার। তার রচিত গান গুলোর কয়েকটি হল – নির্জন যমুনার কূলে বসিয়া কদম্বতলে, আমার অন্তরায় আমার কলিজায়সুখের নিশি প্রভাত হলো উদয় দিনমণি, শমন লইয়া পিয়ন খাড়া আর কত দিন দেরি, ছাড়িয়া যাইও না বন্ধু রে, পরদেশীরে দূর বিদেশে ঘর, নব যৌবন আষাঢ় মাসে, তোমার মতো দরদী কেউ নাই, বন্ধু যদি হইতো নদীর জল বিখ্যাত এই বাউলসাধক ৫৭ বছর বয়সে ১৩৮৩ বঙ্গাব্দের ৩ ফাল্গুন, ১৯৭৭ খ্রিষ্টাব্দের ১৫ই ফেব্রুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন। ছাতক উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক তপন তরফদার বলেন, বাংলা লোক সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ভাষ্যকার জ্ঞানের সাগর দূর্বিণ শাহ ছিলেন এই অঞ্চলের গর্ব।

এই বাউল সাধকের কারনে এ অঞ্চলের পরিচিতি দেশ-বিদেশে। সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের ফলে তার জীবন দর্শন, বাউলদের তথ্য ও গবেষণা এখানের সংস্কৃতি প্রেমীদের অনুপ্রেরণা যুগাবে। ছাতক উপজেলা নির্বাহি অফিসার মামুনুর রহমান বলেন, সারাদেশের ২১ জন মনীষীর নামে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে জ্ঞানের সাগর দূর্বিণ শাহ রয়েছেন।এর মধ্য দিয়ে এখানের সংস্কৃতি চর্চা আরও সমৃদ্ধ হয়ে উঠবে। এটি নির্মাণে সকল ধরনের সহযোগিতা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে করা হবে।

RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments